বাংলাদেশ ব্যবসা এবং আবিষ্কারে এগিয়ে যাচ্ছে: সুমাইয়া কাজী

ভূমিকা: সুমাইয়া কাজীকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার কিছু নেই। বিশ্বের প্রভাবশালী নারীদের মধ্যে তার নামটি উচ্চারিত হচ্ছে। বিস্ময়করভাবেই তিনি  বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী।

হুট করেই মাথায় এলো তার একটা সাক্ষাৎকার নেওয়া যেতে পারে। বাংলাদেশ নিয়ে তার ভাবনাগুলো জানতে ইচ্ছে হলো। সেজন্যই  এ বছরের জুন মাসের ১৮ তারিখ সুমাইয়ার সঙ্গে ই-মেইলে যোগাযোগ করি। 

রিপ্লাই পেয়ে যাই। তিনি প্রশ্ন পাঠাতে বলেন। আমি প্রশ্ন পাঠাই। উত্তরের জন্য দীর্ঘসময় আমাকে অপেক্ষা করতে হয়েছে। ব্যস্ততায় তিনি উত্তর লিখার জন্য বসতে পারছিলেন না। যাইহোক, অবশেষে উত্তর দিলেন। তবে জুড়ে দিলেন শর্ত। সবগুলো উত্তর অনুবাদ করে প্রকাশের পূর্বে তাকে পাঠাতে হবে। নীতিগতভাবে আমি স্বচ্ছ থাকার চেষ্টা করেছি। তাই অনুবাদ করে পাঠালাম। এরপর আবার দীর্ঘ সময়। শেষমেষ  ৪ সেপ্টেম্বর তিনি প্রকাশের অনুমতি দিলেন। জুন-সেপ্টেম্বর সময়টা খুব বেশি। তারপরও পৃথিবীর প্রভাবশালী ব্যক্তি বলে কথা! একটু সময় লাগলেও তার সাক্ষাৎকার নিতে পেরে অনুভূতিটা মন্দ না। তারপরও শুরুতে আমার ইচ্ছে ছিল উত্তরগুলোর পর নতুন করে আরও কিছু প্রশ্ন করার। কিন্তু সময়টা এতো বেশি লাগছিল যে সে সাহস আর করিনি।  

 

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীদের মধ্যে বার্তা সংস্থা ‘রয়টার্স’ এবং মার্কেট গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘ক্লাউড’ সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি জরিপ পরিচালনা করে। এ তালিকায় ৬৭ নম্বর পেয়ে ১৭তম স্থান অধিকার করেছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী সুমাইয়া কাজী। Continue reading