ফাহমিদুল হক ও প্রণব ভৌমিকের তারেক মাসুদ পাঠ

Tareq Masudচলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদ সম্প্রতি সময়ে গবেষণার বিষয় হয়ে উঠেছেন। তারেক মাসুদকে নিয়ে গবেষণার কারণও আছে বৈকি। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে ভিন্ন মাত্রা যোগ করা নির্মাতাদের মধ্যে তারেক মাসুদ ছিলেন উজ্জ্বল নক্ষত্র।

তারেক মাসুদকে নিয়ে ২০১৪ সালের বই মেলায় প্রকাশিত হয়েছে তেমনই একটি গবেষণাগ্রন্থ। এটি প্রণব ভৌমিকের মাস্টার্স থিসিসের ভিত্তিতে রচিত বলেই জানা যায়। তার তত্ত্বাবধায়ক ছিলেন ফাহমিদুল হক।

শিক্ষক ফাহমিদুল হকই থিসিসটিকে সম্পাদনা ও পরিমার্জনা করে বইয়ে রূপ দিয়েছেন। বইটির নাম দিয়েছেন ‘তারেক মাসুদ জাতীয়তাবাদ ও চলচ্চিত্র’। রচনায় ফাহমিদুল হক এবং প্রণব ভৌমিক

যৌথ প্রয়াসে বইটি রচিত হলেও গবেষণার মূল কাজটি অবশ্য প্রণব ভৌমিক করেছেন বলে ধরে নেয়া যায়। Continue reading

প্রেম-বিপ্লব-সম্পর্কের টেলিভিশন

বাংলাদেশের গ্রামের মানুষের মন কেমন? এ প্রশ্নের উত্তরে প্রথম যে কথাটি উঠে আসবে, সেটি হলো- গ্রামের মানুষের মন ধর্মভীরু। আর এই ধর্মভীরু মানুষের মন নিয়েই মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ছবি ‘টেলিভিশন’।

televisionতবে ধর্ম বিষয়টা স্পর্শকাতর। এ বিষয়ে খুব বেশি উচ্চবাচ্য করা কঠিন। এজন্যই নির্মাতা খুব কোমলভাবেই ধর্ম নিয়ে কাজ করেছেন। এদেশে ঘটে যাওয়া অসংখ্য ঘটনাকে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন ফারুকী। ছবির শুরুতেই পত্রিকার পাতায় নারীদের ছবিগুলোকে শাদা কাগজে ঢেকে দিচ্ছেন একজন মানুষ। কিন্তু মনের চাহিদা মেটাতে উঁকি দিয়ে ঠিকই ছবি দেখে মন ভরাচ্ছেন। অন্যদিকে এ পত্রিকার পাঠক আমিন চেয়ারম্যানের সামনে মাইক হাতে সাংবাদিক। দুজনের মাঝখানে বিশাল শাদা কাপড়। কারণ সাংবাদিক একজন নারী।

কোনো নারীর সামনে আমিন চেয়ারম্যান আসবেন না। এভাবেই গল্পের শুরু। যে গল্পে বলা হয় পানিঘেরা গ্রামের গল্প। যে গ্রামে আধুনিকতার ছোঁয়া লাগাতে দেন না চেয়ারম্যান। ধর্মীয় বিশ্বাসকে টিকিয়ে রাখতে তার আপ্রাণ চেষ্টা। যে চেষ্টায় গ্রামে তরুণদের হাতে পৌঁছায়নি মোবাইল ফোন এবং কারও ঘরে নেই টেলিভিশন। Continue reading